• শিরোনাম

    ময়মনসিংহ সিটি নির্বাচনে অনৈতিক কর্মকান্ডের সুযোগ নেই- রিটার্নিং কর্মকর্তা

    ময়মনসিংহ প্রতিনিধি | ০৩ মে ২০১৯ | ৪:৩১ পূর্বাহ্ণ

    ময়মনসিংহ সিটি নির্বাচনে অনৈতিক কর্মকান্ডের সুযোগ নেই- রিটার্নিং কর্মকর্তা

    সাংবাদিকরা খবর ও খবরের পিছনের খবর সংগ্রহ করবেন এবং তাৎনিক ব্যবস্থা নেওয়ার মত কোন ঘটনা থাকলে তা নির্বাচন কমিশনকে অবহিত করে নির্বাচন কমিশন ও ময়মনসিংহবাসীকে সহযোগীতার লক্ষ্যে সাংবাদকিদের প্রতি আহবান জানিয়েছেন ময়মনসিংহ সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনের রিটার্নিং কর্মকর্তা ও আঞ্চলিক নির্বাচন কর্মকর্তা মোঃ আলীমুজ্জামান।
    ময়মনসিংহ সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনকে অবাধ, সুষ্ঠ ও শান্তিপুর্ণ নির্বাচন অনুষ্ঠানে গণমাধ্যম কর্মীদের সাথে বৃহস্পতিবার তার কার্যালয়ের হলরুমে এক মতবিনিময় সভায় রিটার্নিং কর্মকর্তা ও আঞ্চলিক নির্বাচন কর্মকর্তা এ সব কথা বলেন। সাংবাদিকগণ যাতে সহজে নির্বিঘ্নে সংবাদ সংগ্রহ করতে পারেন সেই লক্ষ্যে নির্বাচন কমিশন সচেষ্ঠ রয়েছে দাবী করে তিনি আরো বলেন, নির্বাচনের সময় ভোট গ্রহণ ও ভোট গণনার সময় বিধি মেনে ভোট কেন্দ্রে প্রবেশ করতে হবে।

    বৈধ কার্ডধারী সাংবাদিকরা সরাসরি ভোট কেন্দ্রে প্রবেশ করতে পারবেন। প্রিজাইডিং কর্মকর্তাকে অবহিত করে ভোট গ্রহণ কার্যক্রমের তথ্য সংগ্রহ, ছবি তোলা এবং ভিডিও ধারণ করতে পারবেন। তবে কোক্রমেই গোপন করে ছবি সংগ্রহ ও ভোট করে ভিতর থেকে সরাসরি সম্প্রচার করা যাবেনা।
    তিনি আরো বলেন, ময়মনসিংহ সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে ৩৩ ওয়ার্ডের ১২৭টি ভোট কেন্দ্রেই ইভিএম পদ্ধতিতে ভোট গ্রহণ হবে।

    নির্বাচনে কোন অনৈতিক কর্মকান্ড ঘটার সুযোগ নেই। কোন ধরণের গুজবে কান না দিতে আহবান জানিয়ে তিনি আরো বলেন, ইভিএম পদ্ধতিতে কে কাকে ভোট দিয়েছে তা যেমন জানার সুযোগ নেই, তেমনি পুর্বের কোন মগ ভোট বা খেলনা ভোট গণনার সুযোগ নেই। পাশাপাশি এক কেন্দ্রের ভোট অন্য কেন্দ্রে বা একজনের ভোট অন্যকে দেওয়ার কোন সুযোগ নেই।

    ইভিএম সম্পর্কে তিনি বলেন, দেশে এই প্রথমবারের মত ইভিএম পদ্ধতিতে ভোট গ্রহণ করা হচ্ছে। একটি শিশু যেমন শতবাধা পেরিয়ে এবং হোচট বা ঠেলা ধাক্কা খেয়ে বড় হয়। তেমন প্রথমবারের মত ব্যবহার হওয়া ইভিএম পদ্ধতিতে কারিগরি জনিত কিছুটা সমস্যা দেখা দিতে পারে। তবে কারিগরি সকল ধরণের ক্রটি বা সমস্যা নিরসনে তাৎনিক উদ্দোগ নেওয়া হবে। এ জন্য প্রতিটি ভোট কেন্দ্রে সেনাবাহিনীর প্রশিক্ষিত দুজন করে অভিজ্ঞ এক্সপার্ট বা বিশেষজ্ঞ রয়েছে।

    এছাড়া প্রতিটি ভোট কেন্দ্রের ইভিএম মেশিনের পিছনে ভোট দুই দফায় প্রশিক্ষিত গ্রহণ কর্মকর্তা, সেনাবাহিনীর প্রশিক্ষিত দুজন কর্মকর্তা ও সিভিল এক্সপার্ট রাখা হয়েছে। ইভিএম পদ্ধতিতে ভোটারদেরকে প্রতিটি ভোট কেন্দ্রে প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়েছে।

    এছাড়া শুক্রবার (০৩ মে) সকাল ১০টা থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত প্রতিটি ভোট কেন্দ্রে মগ ভোটিং বা খেলনা ভোটিং বা নুমনা (ভোটের দিনের মত) ভোট গ্রহণ করা হবে। যাতে প্রতিজন ভোটার প্রশিতি হয়ে ভোট প্রদান করতে পারেন। তবে শুক্রবার বিসিএস পরীার কারণে ২৬টি ভোট কেন্দ্রে দুপুর বারোটা থেকে সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত খেলনা ভোট গ্রহণ করা হবে।

    ১২৭টি ভোট কেন্দ্রের ৮৩০টি ভোট কে ময়মনসিংহ সিটি নির্বাচনে ২ লাখ ৯৬ হাজার ৯৩৮ জন ভোটার ভোট প্রয়োগ করবেন।

    প্রথমবারের মত অনুষ্ঠিত ময়মনসিংহ সিটি নির্বাচনে সব ধরণের নিরাপত্তা বিধানে নির্বাচন কমিশনের পক্ষ থেকে প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে। নির্বাচনে ভোট গ্রহণ সংশ্লিষ্ঠ কর্মকর্তা, প্রার্থী ও ভোটারসহ সকলের নিরাপত্তায় ২২ প্লাটুন বিজিবি, ৩৩ টিম র‌্যাব (প্রতি ওয়ার্ডে একটি করে), আনসার ব্যাটালিয়ন তিনটি টিম, পুলিশের (প্রতি ওয়ার্ডে একটি করে) ৩৩টি মোবাইল টিম ও ১১টি স্টাইকিং দল থাকবে। এছাড়া প্রতিটি ভোট কেন্দ্রে সার্বনিক ১০জন আনসার ও তিনজন করে পুলিশ থাকে। এর মধ্যে পাচজন অস্ত্রধারী থাকবে।

    এছাড়াও প্রতিটি ওয়ার্ডে একজন করে নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেটসহ তিনজন অতিরিক্ত নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট দায়িত্ব পালন করবেন। রিটার্নিং কর্মকর্তা আরো বলেন, নির্বাচনকালীন সকল ধরণের অপরাধ নিয়ন্ত্রণ এবং অপরাধীদের আইনের আওতায় এনে সাজা প্রদানে ১৬জন জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মাঠে থাকবেন।

    Comments

    comments

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
    ১০১১১২১৩১৪
    ১৫১৬১৭১৮১৯২০২১
    ২২২৩২৪২৫২৬২৭২৮
    ২৯৩০  
  • ফেসবুকে নতুনকণ্ঠ