শিরোনাম

বাবা তোমাকে ভালবাসি..

ইশরাত জাহান শারমীন | ২১ জুন ২০২০ | ৭:৩৪ অপরাহ্ণ

বাবা তোমাকে ভালবাসি..

“যেদিন আমি ছোট ছিলাম,যুবক ছিলেন বাবা,
সেদিন টি আসবে ফিরে যায় কি তা আজ ভাবা?
বাবার কাছেই হাঁটতে শিখি,শিখি চলা-বলা,
সারাটি দিন কাটতো আমার জড়িয়ে তার গলা।
বাবার হাতেই হাতে খড়ি,প্রথম পড়া লেখা,
বিশ্বটাকে প্রথম আমার বাবার চোখেই দেখা।”

আজ বিশ্ব বাবা দিবস।জুন মাসের তৃতীয় রোব বার বাবা দিবস পালিত হয়।আজ বিশ্বের ৭৪ টি দেশে বিশ্ব বাবা দিবস পালিত হচ্ছে।১৯০৮ সালে প্রথম বাবা দিবস উদযাপনের উদ্দ্যোগ নেয়া হয়েছিলো।১৯৬৬ সালে যুক্তরাষ্ট্রের তৎকালীন প্রেসিডেন্ট লিন্ডন বি জনসন জন মাসের তৃতীয় রোববারকে আনুষ্ঠানিক ভাবে বাবা দিবস হিসেবে নির্ধারন করেন।এরপর ১৯৭২ সালে প্রেসিডেন্ট রিচার্ড নিক্রন প্রতিবছর জাতীয় ভাবে বাবা দিবস পালনের রীতি চালু করেন। বর্তমানে স্যাটেলাইট এবং ইন্টারনেটের যুগের সুবাদে ঘটা করে বাবা দিবস পালিত হচ্ছে।

আসলে বাবাদের ভালবাসতে কোন দিবসের প্রয়োজন হয়না।বাবারা হচ্ছেন সন্তানদের কাছে আল্লাহর দেওয়া শ্রেষ্ঠ গিফ্ট। বাবা হচ্ছেন একটা বটবৃক্ষ যার ছায়াই সন্তনেরা বেড়ে উঠে।বাবা হলেন তার সন্তানের ভবিষ্যৎ গড়ার কারিগর।বাবা হলেন এমনি একজন লোক যে নিজে না খেয়ে তার সন্তানের মুখে খাবার তুলে দেন।তিনি রোদে পুরে বৃষ্টিতে ভিজে তার সন্তানদের জন্য উপার্জন করেন।কখনও হাজার কষ্টেও তার সন্তান দের কোন অভাব বুজতে দেন না।বাবাদের জামা মায়েদের শাড়ি থেকে দামি হয়না।তারা এক জোরা জুতা বছরের পর বছর পায়ে দেন।বাবাদের কমদামি মোবাইলটা একেবারে অকেজো না হলে ফেলে দেন না।পৃথিবীতে খারাপ মানুষ হাজারটা আছে বাট পৃথিবীতে একটাও খারাপ বাবা নেই।তাই বাবা দিবসে হাজার সালাম জানাই পৃথিবীর সব বাবাদের।দোয়া করি আজীবনি যেনো এ বাবা নামক বটবৃক্ষটি তার সন্তানদের ছায়া দিতে পারেন।

বাবাকে নিয়ে লিখে শেষ করা যাবেনা।পরিশেষে তাই বলছি, ” বাবা নেই যার তার মতো অভাগা পৃথিবীতে আর কেউ নেই।”তাই সকল সন্তানদের উদ্দশ্যে বলছি তারা যেনো বৃদ্ধ বয়সে এ বটবৃক্ষটি উপরে না ফেলে, তাদের স্থান যেনো কোন বৃদ্ধশ্রমে না হয়।

Facebook Comments

সংবাদ ও সাংবাদিকতা কি?

প্রবাসীদের ইউটিউব থেকে আয়

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১
১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
১৯২০২১২২২৩২৪২৫
২৬২৭২৮২৯৩০৩১