শিরোনাম

অনেক কথার অনেক দোষ, ভেবে চিন্তে কথা কইস..!

মুক্তি মতিয়া খান | ১৯ জুন ২০২০ | ৬:৫৭ অপরাহ্ণ

অনেক কথার অনেক দোষ, ভেবে চিন্তে কথা কইস..!

এটা খুব সম্ভবত একটা খনার বচন। কিন্তু বর্তমান সময়ের প্রেক্ষাপটে খুবই সময় উপযোগী। আমি আমার কথা দিয়েই শুরু করি, মনে হচ্ছে হতাশার সমুদ্র পারি দিচ্ছি , চারিদিকে তাকালাম শুধুই অন্ধকার। কোনো ই কূল- কিনারা নাই—–

বলছিলাম আমাদের এই বৈশ্বিক মহামারির ক্রান্তিকালীন সময়ে সরকারের কিছু কর্তা ব্যক্তিদের অসংলগ্ন কথাবার্তা ও কার্যক্রম যা সরকারের জন্য বিব্রতকর আর সেই সাথে আমার মতো অতি সাধারণ নাগরিকদের মনে হতাশা , ভয় ও ক্ষোভের উদ্রেক ঘটাচ্ছে। মাঝে মাঝে মনে হয় আমি বালখিল্যদের দেশে বাস করছি নাতো!!!

না কি সেই রূপকথার হিরক রাজার দেশে!!! যেখানে রাজা কে কেন্দ্র করে তার আশেপাশের চাটুকার পরিবেষ্টিত অবস্থায় , তাদের হস্যধ্বনি মুখর শ্লোগান কানে ভেসে আসছে, “হিরক রাজা ভগবান করো তাহার জয়গান”। আর যাদের সাথে হিরক রাজার মতের অমিল হচ্ছে , তাকে ধরে এনে মেশিন মাথা ঢুকিয়ে মগজধোলাই করা হচ্ছে। কি হচ্ছে এসব?? স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের কিছু ব্যক্তি এভাবেই ক্রমাগত আমাদের হিরক রাজার মতো মগজ ধোলাই করেই যাচ্ছে তাদের চাটুকারপরিবেষ্টিত হয়ে। মনের মাঝে প্রশ্ন জাগে, এরা কি ঘুমিয়ে আছে, নাকি অন্য জগত থেকে আগত এলিয়েন জাতীয় কিছু??

গত ১৮/০৬/২০২০ ইং স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের ব্রিফিং– এ বলা হয় এই করোনা ভাইরাস নাকি আরো ৩ বছর অথবা এর অধিক কাল আমাদের মাঝে অবস্থান করবে। আমার ক্ষুদ্র জ্ঞান মতে, বাংলাদেশে যদি হার্ড ইউমেনিটি তৈরি হয়ে যায় , সেক্ষেত্রে ও একবছরের বেশি সময় কাল করোনা স্থায়ী হওয়ার কথা না। বিশ্বের অন্যান্য দেশ গুলোর করোনা র পরিসংখ্যান পর্যালোচনা করলে সেটাই পরিলক্ষিত হয়।কিন্তু স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের ব্রিফিং –এ করোনার আয়ুষ্কাল নিয়ে এরকম ব্যক্তিগত কল্পনা প্রসূত বক্তব্য অবিবেচক মনোভাবের ই বহিঃ প্রকাশ পরিলক্ষিত হয়। একটা সময় চীনে যখন এই করোনার প্রাদুর্ভাব দেখা দিলো তখন এই সকল ব্যক্তিবর্গ পত্র -পত্রিকা য় সাক্ষাৎকার দিয়ে বলেছেন যে, এদেশে গরমের কারনে করোনা আসবে না আর যদি ও বা আসে স্থায়ী হবে না।

অথচ ফলাফল আমাদের সামনে। করোনার জন্য যখন ইতালি সহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশে লকডাউন শুরু হয় তখন কিছু অতি উৎসাহী প্রবাসী ভাই তাদের পরিবার নিয়ে অবকাশ যাপন করতে দেশে আসেন, এই অবিবেচক গন নির্দ্বিধায় প্রবেশের জন্য অনুমতি দেন এবং বলেন, ” প্রবাসী যারা আসলেন, তারা হোম কোয়ারান্টাইন এ থাকলে আর কোনোই সমস্যা নাই “। এদিকে প্রবাসী ভাই রা বাড়িতে এসে চারিদিকে ঘোরাঘুরি শুরু করেন, বাজারে, শপিংয়ে, আত্মীয় র বাড়িতে বেড়াতে যান। ফলাফল — মার্চে র শুরু তে দেশে প্রথম করোনা রোগীর সন্ধান। আজকে শুধু মাত্র, কিছু ই হবেনা হবেনা করে কি হয়ে গেলো আমাদের!!!!

কতো গুণীজন কে আমরা এ পর্যন্ত হারালাম? কতো পরিবার প্রিয়জন হারা হলো? আরও কতোজন হারাবে???আজকে তাই আমাদের মাননীয় সেতূ মন্ত্রী এবং আওয়ামী লীগের সম্মানীত সাধারণ সম্পাদক জনাব ওবায়দুল কাদের মহোদয় আহ্বান করেছেন,স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের এরকম কল্পনা প্রসূত তথ্য প্রদান করা থেকে বিরত থাকার জন্য।

সরকারের উচ্চ পর্যায়ে থেকে গণমাধ্যম কে ব্যবহার করে এরকম বক্তব্য প্রদান বন্ধ হোক, আর এসকল ব্যক্তির বোধোদয় হোক।এরা এদের কথাবার্তায় শালীন হয়ে সরকার কে বিব্রত করা বন্ধ করুন, এই রকম জুজুর ভয় দেখিয়ে দায়িত্ব জ্ঞানহীনতার পরিচয় তাই জনগণ কে হতাশা র হাত থেকে রেহাই দিন।পরিশেষে বলবো, “ভয় নয় সচেতনতা ই পারে করোনা র হাত থেকে বাঁচাতে”।

Facebook Comments

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

সংবাদ ও সাংবাদিকতা কি?

প্রবাসীদের ইউটিউব থেকে আয়

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০
১১১২১৩১৪১৫১৬১৭
১৮১৯২০২১২২২৩২৪
২৫২৬২৭২৮২৯৩০৩১