Monday , 23 October 2017

মানুষের অনুভূতিতে কখনোই আঘাত দিতে নেই

December 11, 2016 8:13 am Leave a comment A+ / A-

15403262_10209522328648370_1438503967_n“মানুষের অনুভূতিতে কখনোই আঘাত দিতে নেই। প্রতিটা মানুষকেই তার প্রতি অন্যের আস্থা বিশ্বাস ভালোলাগা ও ভালোবাসার মূল্য দিতে হয়। কখনো কখনো শুধু নিজের সম্মান ও মর্যাদা রক্ষা করেও সেটা দেয়া সম্ভব। সৃষ্টির সীমাহীন আনন্দ আর এর অনাবিল প্রশান্তি ছাড়া প্রাপ্তির কিছু থাকে না বলে প্রত্যাশার জায়গাটা তাই কেবল ওইটুকুই। জীবন চলার পথে পৃথিবীতে এমন কিছু সম্পর্ক তৈরি হয়ে যায় যেখানে কেউ একজন নিজের সম্মান ও মর্যাদা ধরে রাখতে না পারলে নিজেকেতো বটেই অন্যকেও খাটো করে ফেলে। হতে পারে হয়তো সে এই খাটো বা ছোট করার গভীরতাটা বোঝে না কিংবা মাপতেও শেখেনি। অথবা সময়ের পালা বদলে হয়তো পাল্টে যায় সবটাই। ভুল মানুষই করে। বিশ্বাস করে ভুল করে … ভুল করে আস্থা রেখেও। তাই ভুল করেই হয়তো এই বিশ্বাস ভঙ্গ করা। তবে যে মানুষটা আহত হয় দোষটা আসলে অনেকাংশেই তার- কারণ প্রত্যাশার সীমানাটা হয়তো সে ছাড়িয়ে যায় অনেকখানি।”

আমার এই ফেসবুক স্ট্যাটাসে আমার খুব কাছের এক ফেসবুক ফ্রেন্ড একটা কমেন্ট করেছিলেন। আমার যে কোনো স্ট্যাটাসই একটু ভিন্ন রকম হয়। চেষ্টা থাকে সার্বজনীন করার। তাই স্ট্যাটাসের কমেন্টের পাল্টা রিপ্লাই সচারচর আমি দেই না। কিন্তু আমার ওই ফ্রেন্ডটি যে কমেন্ট করেছিলেন তা আমার স্ট্যাটাসের সাথে সঙ্গতিপূর্ণ নয় বলেই রিপ্লাই দিতে ইচ্ছে করলো। বাড়তি এই কথাগুলো লেখার প্রয়োজন হতো না যদি আমার ওই ফ্রেন্ডের কমেন্টটা থাকতো। উত্তরটা লেখার পর দেখলাম আনুমানিক আট ঘন্টা পর তিনি নিজেই তা ডিলিট করে দিয়েছেন।

(আমার লেখা রিপ্লাইঃ) আমাদের সমাজে বিশাল বিত্ত-সম্পদের মালিক অনেক মানুষ আছে এক সময় যাদের দু’বেলা দু’মুঠো খাওয়ার পয়সাও জুটতো না। চোখের সামনে হাজার কোটি টাকার মালিক এমন শিল্পপতিও দেখা যায় যারা এই ঢাকাতেই ফুটপাতে দোকানদারি করে পেট চালাতো। অথচ আজ তারা সমস্ত ধরাছোঁয়ার বাইরে। কি করে একজন মানুষের এতোটা উত্থান হতে পারে বা হয় তা বোধকরি সামান্য জ্ঞান-বুদ্ধি আছে এমন কোনো মানুষেরই না বোঝার কথা নয়। অর্থ-সম্পদের পাহাড় বেয়ে একেবারে চূঁড়ায় উঠে যাওয়ার অনেক পথই আছে এই মানুষগুলোর কাছে। এরা দেশের শীর্ষ পর্যায়ের মানুষগুলোকে কি করে যেন বশে নিয়ে আসে। এরপর তাদের শীতল ছায়াতেই গড়ে তোলে নিজেদের বিশাল সাম্রাজ্য। সত্যি যেন জাদু জানে এরা। অথচ জনশ্রুতি আছে- এতো কিছু থাকার পরও এদের কেউ কেউ নাকি শান্তিতে নেই … কিছু নাকি খেতেও পারে না শেষ বয়সে এসে। অনেকের মতে- এটাই নাকি পৃথিবীর বুকে তাদের শাস্তি। কিন্তু কি আসে যায় তাদের? কেউ কি তা দেখছে বা জানছে হাতেগোনা কিছু মানুষ ছাড়া?

কাফনের কাপড়েতো কোনো পকেট নেই, তাহলে হাজার কোটি টাকার মালিক হওয়ার পরও কেন টাকার পেছনে ছোটা বন্ধ হয় না এদের? এমন প্রশ্নও অনেকের। কতো টাকা আর সম্পদ দরকার হয় একজন মানুষের? উত্তরটাও বোধকরি খুব কঠিন নয়। কেবল টাকা দিয়েই এরা দুনিয়ার সবকিছু পেতে চয়ে … কিনতে চায়। ভেতরের সুখ আছে কি নেই তা নিয়ে তাদের মাথা ব্যথা নেই। টাকার পাহাড় গড়ে তোলা তাদের কাছে নেশার মতো।

আর প্রতিষ্ঠানের ক্ষতি করে নিজের আখের গুছিয়ে নেয়া লোকগুলো নরকের কীটের মতো। এরা যে থালে খায় সেই থালই ফুটো করে। তবে প্রশ্রয় পায় বলেই এরা সুযোগটা নেয়। সবকিছু ম্যানেজ করে নেয়ার মতো এক ধরণের প্রখর সম্মোহনী শক্তির অধিকারী এরা। কোনো যোগ্যতা না থাকায় কেবল মিষ্টি কথা বলে … অবাস্তব ও মিথ্যা স্বপ্ন দেখিয়ে … আবার কখনো কখনো নানা কাজ দিয়ে এরা চলে যায় একেবারে গুড বুকে। এক সময় চড়ে বসে মাথায়। আর সুযোগটা বারবার সব জায়গায় পায় বলে এরা যখন যেখানে থাকে কেবল তার ক্ষতিই করে। তারপরও এই মানুষগুলোই আবার নির্বোধ কিছু মানুষের মাথায় চড়ে বসে থাকে অবলীলায়। কিছু গড়তে জানে না বলে এদের হাতে কেবল ধ্বংসটাই হয়। আর যারা গড়ে … গড়তে জানে তারা নিভৃতেই থেকে যায় … থাকতে পছন্দ করে। এদের কাজটাই যে শুধু নতুন কিছু গড়ে যাওয়া কিংবা সারিয়ে তোলা হেলে পড়া কোনো কিছু। বাতাসের প্রতিকূলে হাঁটে বলে তাদের প্রতিটা পদক্ষেপই দৃঢ় হয়। তাই কিছু না পেলেও এই মানুষগুলোর প্রাপ্তির ঝুলিটা কিন্তু পূর্ণ থাকে সব সময় যা খুব কম মানুষের কপালেই জোটে। আর দুর্ভাগা? দুর্ভাগা হলো সেই মানুষগুলো যারা নিজেদের ভালোটাও নিজেরা বোঝে না। যে ডালে বসে তারা পৃথিবীটাকে দেখছে কি এক অজানা মোহে সেই ডালই তারা কেটে ফেলে নিজেদের অস্তিত্বকেই রীতিমতো হুমকির মুখে ফেলতে উদ্যত হয়।

-আহসান উদ-দৌলা মারুফ, (বার্তা প্রধান, মোহনা টিভি)

মানুষের অনুভূতিতে কখনোই আঘাত দিতে নেই Reviewed by on . “মানুষের অনুভূতিতে কখনোই আঘাত দিতে নেই। প্রতিটা মানুষকেই তার প্রতি অন্যের আস্থা বিশ্বাস ভালোলাগা ও ভালোবাসার মূল্য দিতে হয়। কখনো কখনো শুধু নিজের সম্মান ও মর্যাদ “মানুষের অনুভূতিতে কখনোই আঘাত দিতে নেই। প্রতিটা মানুষকেই তার প্রতি অন্যের আস্থা বিশ্বাস ভালোলাগা ও ভালোবাসার মূল্য দিতে হয়। কখনো কখনো শুধু নিজের সম্মান ও মর্যাদ Rating: 0

আপনার মন্তব্য দিন

scroll to top